আর কোনো ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। রোববার বিকেলে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশানের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
ফখরুল জানান, শনিবার স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। এসময় দলের মহাসচিব ২৯টি পৌরসভা, ৪ টি উপজেলা ও ৩ টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অনিয়ম ও কেন্দ্র দখলের অভিযোগ করেন। ফখরুল অভিযোগ করেন, সব স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ভোট কারচুপি হয়েছে।তিনি বলেন, বিএনপি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে বলেই চরম প্রতিকূল অবস্থায় স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অংশ গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। কিন্তু সাম্প্রতিক অনুষ্ঠিত নির্বাচনগুলোতে এটা প্রমাণিত হয়েছে যে, এই নির্বাচন কমিশন কোনও নির্বাচনই নিরপেক্ষ, অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে করার যোগ্য নয়। এই অনির্বাচিত সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করাই তাদের প্রধান কাজ।
এছাড়াও স্থানীয় সরকার নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নের বিরোধিতা বিএনপি সব সময়ই করেছে। এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে
এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে কোনো নির্বচন সুষ্ঠু হবে না বলেও অভিযোগ বিএনপির।
বিএনপির মহাসচিব জানান, স্থায়ী কমিটির সভায় ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনের আওতায় আটককৃত সব ব্যক্তির অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তির দাবি করা হয় এবং গণবিরোধী ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন বাতিলের জোর দাবি জানানো হয়।

Leave your comments